( Human Cloning ) একটি রহস্য !

মানব ক্লোনিং বলতে বুঝায় একটি মানুষের হুবুহু জ়েনেটিক প্রতিকৃতি তৈরী করা।

মানব ক্লোনিং সাধারনত দুই প্রকারের-

• থেরাপিউটিক ক্লোনিং (therapeutic cloning)

• রিপ্রোডাকটিভ ক্লোনিং (reproductive cloning)

কিন্ত ২০০২ সালের ২৭ ডিসেম্বর রেলিয়ান নামক একটি ধর্মীয় গোষ্ঠী কর্তৃক প্রতিষ্ঠিত একটি প্রতিষ্ঠানের প্রধান নির্বাহী ডঃ ব্রিজিত বোইসেলিয়ার পৃথিবীর প্রথম ক্লোন মানব শিশু জন্মের ঘোষণা দেন। পৃথিবীর প্রথম ক্লোন মানবকন্যার নাম রাখা হয়েছে ইভ। ৭ পাউণ্ড ওজনের এই কন্যাশিশুটি ২০০২ সালের ২৬ ডিসেম্বর সিজারিয়ান সেকশন অপরেশনের মাধ্যমে পৃথিবীতে ভূমিষ্ঠ হয়। শিশুটির মা একজন আমেরিকান, বয়স ৩১।

ক্লোনিং এর নৈতিক দিক :

মানব ক্লোনিং নৈতিকভাবে ঠিক কি না, তা নিয়ে বিতর্কের শেষ নেই। ভেড়ার ক্লোনিংয়ের মাধ্যমে ডলির জন্মের পর থেকে তা আরও বেড়েছে। তবে মার্কিন চিকিৎসক পানাইওটিস জাভোস বলছেন, কয়েক বছরের মধ্যেই এ বিতর্কের অবসান হবে। জন্ন নেবে বিশ্বের প্রথম ক্লোন শিশু।

প্রথম যখন ক্লোনিং করে ভেড়া শিশুর জন্ম দেয়া হয় , তখন সংশ্লিষ্ট বিজ্ঞানীরাই এ তথ্য প্রকাশ করেছিলেন যে, এর আগে তাদের ব্যর্থতার সংখ্যা ছিল ২৭৬। ২৭৬ বার যদি ভেড়া শিশুর জন্ম প্রক্রিয়া ব্যর্থ হয়ে থাকে তাহলে মানব শিশুর ক্লোনিংয়ের ব্যর্থতারও তো একটি সংখ্যা থাকবে । তো , জন্মের পথে কিংবা জন্মের পর পূর্ণাঙ্গতার ক্ষেত্রে যতগুলো ব্যর্থতা কিংবা ভুল হবে এসব মানব প্রাণের দায় কে নেবে?

জীন তত্ত্বের বিজ্ঞানী William Muir I Dr. Harry Griffin ও ভ্রূণতত্ত্ববিদ Richard Gardner এর মতে-

(1) জিনে Mutation ঘটে বিকৃত মস্তিষেকর মানুষ তৈরী হতে পারে।

(2) ক্লোন শিশু ধারণকারী মায়ের গর্ভাশয়ে Chorio-carinoma ধরনের ক্যানসার রোগ হতে পারে, যা পরে গর্ভফুলে (Placenta ) ছড়িয়ে যেতে পারে।

(3) ক্লোন করা মানুষটি তাড়াতাড়ি বুড়িয়ে যেতে পারে।

(4) নির্ধারিত সময়ের আগে গর্ভপাত হয়ে যেতে পারে।

(5) প্রযুক্তিটি অত্যন্ত ব্যয়বহুল হবে, যা গরীব দেশের পক্ষে করা সম্ভব হবে না।

(6)সামাজিক, পেশাগত, রাজনৈতিক পরিচয়, পিতৃত্ব, পুত্রত্ব বা আত্মীয়তার সকল বন্ধনের মূল ব্যক্তিটি এবং তার কোষসঞ্জাত নতুন মানুষটি বা মানুষগুলোর সহাবস্থান কেমন হবে? কোন নৈতিকতার ভিত্তিতে হবে?

এছাড়া ক্লোন শিশুদের যদি মানবশিশু হিসাবে মূল্যায়ন না করা হয় তাহলেও কিছু নৈতিকতার সমস্যা দেখা দিতে পারে। ওরা মানবশিশু কিনা?

তানভীর আহমেদ
জীবপ্রযুক্তি ও জীনপ্রকৌশল বিদ্যা।
মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *