৩১মে থেকে সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দিচ্ছে।

প্রতিটা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দিলে জবাবদিহিতা নিশ্চিত করতে হবে,এমনটি জানিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদফতর। তাছাড়াও শিক্ষক ও শিক্ষাদান কর্মীদের প্রশিক্ষণ দিতে হবে। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান পরিচালনায় এমনি ১৭ ধরনের নির্দেশনা জারি করেছে।
শিক্ষামন্ত্র৩১ মে খুলার কথা। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। তবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জানিয়েছিল, পরিস্থিতি অনুকূলে না হলে সেপ্টেম্বরে খুলবে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান।
তাছাড়া ১৭ শর্তগুলো হলো,

১. শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান মাস্ক, জীবাণুনাশক এবং নন-কন্ট্যাক্ট থার্মোমিটার সংগ্রহ করে জরুরি কাজের পরিকল্পনা প্রণয়ন করুন।প্রতি ইউনিটের শিক্ষক ও শিক্ষাদান কর্মীদের প্রশিক্ষণ জোরদার করুন।


২. শিক্ষক, শিক্ষাদান কর্মী ও শিক্ষার্থীদের স্বাস্থ্যের অবস্থা পর্যবেক্ষণ জোরদার করুন।

৩. শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের গেটে শিক্ষক, শিক্ষার্থী, শিক্ষাদানকর্মীসহ প্রতিষ্ঠান ঢুকার সময় শরীরের তাপমাত্রা পরীক্ষা করুন। বেশি পাওয়া গেলে প্রবেশে নিষেধ করুন।


৪. শ্রেণিকক্ষ, খেলার মাঠ এবং পাঠাগারের মতো গুরুত্বপূর্ণ জায়গায় বায়ু চলাচল করুন। দিনে ২-৩ বার ২০-৩০ মিনিটের মতো উন্মুক্ত বায়ু চলাচল নিশ্চিত ও শীতাতপ নিয়ন্ত্রণের।

৫. শ্রেণিকক্ষ ছাড়াও বিভিন্ন মেঝে, দরজা ও সিঁড়ির হাতল এবং যেসব বস্তু বারবার ব্যবহৃত হয় সেসব বস্তুর ঘন ঘন পরিষ্কার ও জীবাণুমুক্ত করুন।

৬. খাবার থালা জীবাণুমুক্ত করে রাখা।

৭. দূরত্ব বজায় রেখে খাবার গ্রহণ করা এবং নিজস্ব থালাবাসন বা ওয়ানটাইম থালাবাসন ব্যবহার করুন।


৮. প্রতিষ্ঠান চত্বরের আবর্জনা পরিষ্কার এবং পরিচ্ছন্ন রাখা।


৯. শারীরিক যোগাযোগ কমিয়ে অনলাইন শিক্ষাকে অগ্রাধিকার দিন।

১০. স্বাভাবিক অবস্থায় যোগাযোগের ক্ষেত্রে এক মিটার দূরত্ব বজায় রাখুন।

১১. শিক্ষক, শিক্ষাদানকর্মী এবং শিক্ষার্থীদের বহির্গমন কমিয়ে দিন।


১২. শিক্ষাদান কর্মকর্তা এবং শিক্ষার্থীরা মাস্ক ব্যবহার করুন। হাত ধোয়াসহ অন্য স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন। দ্রুত হাত শুকানো জীবাণুনাশক বা জীবাণুনাশক টিস্যু ব্যবহার করুন।

১৩. শিক্ষাদানের সময় নিয়ন্ত্রণ এবং মানসিক স্বাস্থ্য সহায়তা ও পরামর্শ প্রদান করুন।


১৪. করোনা সন্দেহজনক ব্যক্তি থাকলে তাৎক্ষণিকভাবে স্থানীয় স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষকে জানান এবং তার সংস্পর্শে আসা ব্যক্তিদের শনাক্ত করে কোয়ারেন্টিন থাকা।

১৫. কোয়ারেন্টিনে থাকা ব্যক্তিদের পিতামাতার স্বাস্থ্যের অবস্থা জানা এবং যোগাযোগ করার জন্য একজন ব্যক্তিকে নিয়োগ করুন।


১৬. নিশ্চিত কোভিড-১৯ কেস পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে স্থানীয় স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষের নির্দেশ অনুযায়ী শীতাতপ নিয়ন্ত্রণ এবং বায়ু চলাচল ব্যবস্থা পরিষ্কার ও জীবাণুমুক্ত করুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

LANGUAGES »